Uncategorized

লাভ ইন ওমান – 3০

ফাতিমাহ এসে আবার আমাদের জন্যে দু’টো স্লিপিং রোব, আমার জন্যে শেভিং সেট উইথ কোলন, আফটার শেভ বাম, নেইল কাটার সহ অনেক কিছু ভরা গিফট প্যাক নিয়ে আর ওর জন্যে বিভিন্ন রকমের কসমেটিক্স ভরা গিফট ব্যাগ সাথে পারফিউমসহ রাজ্যের জিনিস । আমাদের সুটকেসে জায়গাই ছিল না । সেজন্যে ফাতিমাহ দু’টো ব্যাগও আমাদের দিল ওগুলো ক্যারি করার জন্যে ।
প্লেন ওড়ার ৪০ মিনিট পর আমাদের জন্যে লাঞ্চ সারভ করা হয়। মেনুতে দেখলাম যে আবার আমাদের ক্যাভিয়ার দেবে এ্যপিটাইজার হিসাবে। আমি আগে থেকেই বলে দিলাম যে ক্যাভিয়ার না ।ফ্রুট দিলেই চলবে। কতো রকমের যে খাবার এনে আমদের সামনে রাখল তার হিসাব নেই। Continue reading

লাভ ইন ওমান -২৪

আমি বললাম,” আমার অর্ডার শুনবে বললে, প্রমিজ করেছ। সো এখন আমার সাথে যেতে হবে শপিংএ। আমি যা কিনে দেব তাই নিতে হবে। আমি জানিনা তুমি কিভাবে তোমার বরকে ম্যানেজ করবে সেটা তোমার প্রবলেম। “ বলে ওকে উঠিয়ে দিলাম। আর বললাম ,”আজ তোমাকে আমি রেডি করে দেব। তুমি শুধু চুপচাপ লক্ষি মেয়ের মতো শুনে যাবে। তুমি হয়তো বুঝতে পেরেছ যে আমি তোমার কোনকথাই শুনবনা।“
আমার নাকটা ধরে বলল ,’ঠিক আছে তোমার যেমন ইচ্ছা আমাকে সাজাও। চল তোমার সাথে যেখানে চাও সেখানেই যাবো।“ “ এইতো লক্ষ্মী মেয়ে। Continue reading

লাভ ইন ওমান পর্ব -১০

লিফট এসে থামল আর অটোটোম্যাটিক দরোজাটা খুলে গেল। কেউ নেই ভেতরে। আমি লবির নাম লিখা বাটনটা প্রেস করতেই ছুটে চলল নীচের দিকে। লিফটের ভেতরে ও মুড অফ করে এক কোণায় দাঁড়ালো। আমার খুব খারাপ লাগলো ওর মুড খারাপ থাকাতে। অটোটোম্যাটিক দরোজাটা খুলে গেল আবার । আমরা লবিতে ঢুকে দাঁড়ালাম চারিদিকে কোথায় কি আছে সেটা দেখার জন্যে । যাকে বলে স্ক্যান করে নেয়া । লবিতে আসার সময়েই আমি খেয়াল করলাম সে নিজের অজান্তেই আমার হাত ধরে ফেললো । Continue reading

লাভ ইন ওমান পর্ব – ৮

একথা শুনে আমাকে একটা খামচি মেরে দিলো । আমি হাসতে হাসতে বললাম,” শোন মেয়ে, খামচি মারতে হয় নিজের জামাইকে মারো গিয়ে… পরের জামাইকে খামচি মারছ কেন ?’ আবারো কেমন যেন অসহায়ের মতো আমার দিকে চোখ তুলে তাকাল আর আমিত

ঘণ্টা খানেক পর আমরা মাস্কাট ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট, সালতানাত অফ ওমানে নামলাম । ওর পাশের জানালা দিয়ে তাকিয়ে দেখলাম আর মনে হোল যে করাচীর চেয়ে অনেক ছোট সিটি এই মাস্কাট । গালফ অফ ওমানের সাথেই লাগানো এই সিটি । একদিকে নীল জল আর একদিকে ঘন ক্রিম কালারের মাটি। আমাদের দেশের মতো সবুজ না। তবে এরা চেষ্টা করছে সবুজ বিপ্লব করার জন্য। মাঝে মাঝেই বেশ সবুজের ছড়াছড়ি ।এদের জীবন আগে খুবই কথিন ছিল কিন্তু পেট্রো ডলারের কারণে ওদের জীবন এখন অনেক ঝামেলাহীন। উপর থেকে দেখে বেশ ছিমছাম মনে হোল কিন্তু সবকিছুই কেমন যেন ঘোলাটে । Continue reading

লাভ ইন ওমান পর্ব – ৭

কিছুটা সঙ্কোচের ছায়া দেখতে পারছিলাম ওর চোখে যে প্লেনের ভেতরে কেউ কি পা উঠিয়ে বসে এমন একটা। আমি হেসে বললাম, “ডোন্ট ওয়রি… অনেকেই লং জার্নিতে পা উঠিয়ে বসে। এই দেখ আমি পা উঠিয়ে বসি।” বলে আমি পা উঠিয়ে একটু বাঁকা হোয়ে বসলাম। দেখে ও হেসে ফেলল। আস্তে আস্তে দু’টো পা একটু এগিয়ে দিয়ে সুন্দর মুখটা ওর আরো সুন্দর লাগলো। ধব্ ধবে সাদা দুটো মানিকিয়র করা পা ওর। দারুণ গভীর নীল রঙের নেইল পলিশের উপরে সাদা দাগ দেয়া ফ্রেঞ্ছ ডিজাইন করা নখগুলো আমি এক সেকেন্ডেই খেয়াল করলাম। স্টাইল জানে মেয়েটা। Continue reading

লাভ ইন ওমান পর্ব – ১

Zia International Airport-At Night-Dhaka

মানুষের জীবনটা সত্যি বিচিত্র। বিখ্যাত আমেরিকান লেখক মার্ক টোআইন বলেছিলেন,” Truth is stranger than fiction” যেমন করে বাস্তব কল্পনাকেও ছাড়িয়ে যায় তেমনি করে মানুষের জীবনে ঘটে যায় কিছু কিছু ঘটনা যা মাঝে মাঝে কল্পনাকেও হার মানায়। এক জীবনে কখন যে কে কোন দিক দিয়ে এসে কিভাবে নিজের জীবনের সাথে মিশে যায় সেটা কেউ বলতে পারে না। কোন রাস্তার মোড়ে কে যে কার জন্যে দাঁড়িয়ে আছে যেমন কেউ বলতে পারেনা তেমনি জীবনের চলার পথের কোন বাঁকে কার হাত যে ছুটে যায় আর কে যে আমাদের জীবন থেকে হারিয়ে যায় সেটাও কারো পক্ষে আগে থেকে আঁচ করা সম্ভব না। Continue reading